রাঙামাটি । রোববার, ২৬ মে ২০২৪ , ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নিউজ ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ১০:০৮, ২৫ মে ২০২৩

গাজীপুর সিটি নির্বাচন: দীর্ঘ হচ্ছে ভোটারদের লাইন

গাজীপুর সিটি নির্বাচন: দীর্ঘ হচ্ছে ভোটারদের লাইন
​​​​​​​ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন (গাসিক) নির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রত্যেকটি কেন্দ্রে ভোটারদের লাইন দীর্ঘ হতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

এদিকে, কানাইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকেই শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এ কেন্দ্রে ভোটার লাইনে অপেক্ষমান ভোটার চা বিক্রেতা সবুজ হোসেন বলেন, সকাল সকাল ভোট দিয়ে দোকান খুলবো, তাই তাড়াতাড়ি আইয়্যা(এসে) পড়লাম ভোট দিতে। ভালোই দেখতেছি ভোটের অবস্থা।  

অপরদিকে, টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের পুরাতন ভবন কেন্দ্রে সকাল থেকে ভোটারদের লাইনে দাঁড়াতে দেখা গেছে। কেউ কেউ সকালেই কেন্দ্রে এসেছেন ভোটের লাইনে দাঁড়াতে। ভোটারদের মধ্যে এক ধরনের উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে। তবে সকালে ভোটকেন্দ্রে আসা বেশিরভাগ ভোটারই বয়স্ক।

টঙ্গী থানা এলাকায় থাকেন মো. নাসির মিয়া (৬০)। তিনি ফজরের নামাজ পড়ে ভোরে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের পুরাতন ভবন কেন্দ্রে এসে ভোট দেওয়ার জন্য সিরিয়ালে দাঁড়ান। এই বয়সেও খুব উৎসাহের সঙ্গে ভোট দিতে এসেছেন। তার আশা এমন একজন নগর পিতা যিনি নগরীকে যানজটমুক্ত এবং জলাবদ্ধতা মুক্ত রাখতে পারবেন। এছাড়া তার তেমন কোনো আশা নেই। ভোট কেমন হবে আশা করছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভোট আল্লাহর রহমতে ভালোই হবে।

এছাড়া, ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডের টঙ্গী দারুস সালাম মাদরাসা ভোট কেন্দ্রে সকাল থেকেই ভোটারদের লম্বা লাইন তৈরি হয়েছে। সবাই স্বতঃস্ফুর্তভাবে ভোট দিতে কেন্দ্রে এসেছেন।

জানা গেছে, আজমত উল্লা খান ভোট দেবেন টঙ্গী বাজারের দারুস সালাম মাদরাসা কেন্দ্রে।

নির্বাচনে মেয়র পদে আটজন ও কাউন্সিলর পদে ২৪৮ জন এবং নারী কাউন্সিলর পদে ৭৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ নির্বাচনের নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১৩ হাজারের বেশি সদস্য মোতায়েন থাকছে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে রয়েছে-পুলিশ, র‌্যাপিড আ্যকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী।

গাজীপুর সিটি এলাকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় র‌্যাব ও আনসার সদস্যদের ৩০টি টিমের পাশাপাশি ১৩ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া পুলিশের ১৯টি স্ট্রাইকিং ফোর্স এবং ৫৭টি মোবাইল টিম রয়েছে। এছাড়া ১৯ ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ১৯টি স্ট্রাইকিং ফোর্স ভোটকেন্দ্রে সজাগ থাকবে।