রাঙামাটি । মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪ , ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

কাপ্তাই (রাঙামাটি) প্রতিনিধিঃ-

প্রকাশিত: ১০:৩৭, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

উজান থকে ধেয়ে আসছে পানি

কাপ্তাই লেকের পানি বৃদ্ধিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

কাপ্তাই লেকের পানি বৃদ্ধিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত
কাপ্তাই লেকে পানি বাড়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।

টানাবৃষ্টি ও উজান থেকে ধেয়ে আসা পাহাড়ী ঢলে কাপ্তাই লেকে অস্বাভাবিক ভাবে বাড়ছে পানি। ফলে কাপ্তাই লেকের পার্শ্ববর্তী বেশ কিছু নিম্নাঞ্চল পানিতে প্লাবিত হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কাপ্তাই বাঁধ সংলগ্ন জেটিঘাট এলাকায় দেখা যায়, কাপ্তাই লেকের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জেটিঘাটের নিচু এলাকায় পানি উঠে গেছে। জেটিঘাটের পার্শ্বস্ত গ্রীণ রিভার ভিউ হোটেল সহ বেশ কিছু দোকানের অংশ পানিতে তলিয়ে গেছে। এছাড়া কাপ্তাই লেকে অস্বাভাবিক ভাবে পানি বৃদ্ধি পেলে আরও কিছু এলাকায় পানি ঢুকে এলাকাগুলি ডুবে যাওয়ার আশংকা করছে স্থানীয়রা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গ্রীণ রিভার ভিউ হোটেলের পরিচালক মোঃ মুছা সওদাগর জানান, লেকের পানি অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যাওয়ায় আমার প্রতিষ্ঠানের সামনের অংশ পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে হোটেল বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছি। অনেক পর্যটক ফোন দিলেও তাদের বুকিং বাতিল করে দিয়েছি। এতে আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি।

কাপ্তাই জেটিঘাট এলাকার বাসিন্দা মোঃ আলী, ছবিনা খাতুনসহ বেশ কয়েকজন জানান, কাপ্তাই লেকে গত একমাস আগেও পানি স্বল্পতায় নৌ চলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। কিছুদিন টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে লেকে পানির পরিমাণ পুনরায় বেড়ে গেছে। প্রতিদিন যে হারে পানি বাড়ছে তাতে কাপ্তাই বাঁধের গেইট খুলে দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তারা আরো জানান, ইতিমধ্যে কাপ্তাই লেকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বেশ কিছু নিচু এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। জেটিঘাটেও ধীরে ধীরে পানির পরিমাণ বাড়ছে।

কাপ্তাই জেটিঘাটের পল্টনের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা শীতল সরকার জানান, কাপ্তাই লেকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে এখন বিলাইছড়ি কিংবা রাঙামাটির সাথে নৌ চলাচল একেবারে স্বাভাবিক হয়ে গেছে। এখন পুরোদমে কাপ্তাই লেকে লঞ্চ কিংবা ইঞ্জিন চালিত বোট গুলো চলছে। তবে পানি অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়াতে এটি অনেকটা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে অনেক নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

এদিকে, কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা পর্যন্ত কাপ্তাই লেকে ১০৭ দশমিক ৫৫ ফুট মিন সী লেভেল (এমএসএল) পানি রয়েছে। বছরের এ সময় পানি থাকা থাকার কথা ১০২ এমএসএল।

এছাড়া, পানি ছাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে, পানির লেভেল বিপদসীমা অতিক্রম না করা পর্যন্ত পানি ছাড়ার সম্ভাবনা নেই বলে নিশ্চিত করেছে পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে শুক্রবার যেকোন সময় লেকের পানি ছাড়া হতে পারে।

সম্পর্কিত বিষয়: