রাঙামাটি । রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৮ আষাঢ় ১৪৩১

রাঙামাটি (সদর) প্রতিনিধিঃ

প্রকাশিত: ১৫:৫৮, ৩ জুন ২০২৪

আপডেট: ১৮:০৩, ৩ জুন ২০২৪

ইউপি চেয়ারম্যান আতুমং মারমা হত্যা মামলার ৪ আসামি গ্রেফতার

ইউপি চেয়ারম্যান আতুমং মারমা হত্যা মামলার ৪ আসামি গ্রেফতার
ফাইল ছবি
ছবি:- আলোকিত রাঙ্গামাটি

রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলার বড়থলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতুমং মারমা হত্যা মামলার অভিযুক্ত ৮ আসামির মধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার (৩ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের একটি আবাসিক হোটেল পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- মামলার ৪নং আসামি ওয়াইভার ত্রিপুরা (৫০), পিতা- বিদ্যারাম ত্রিপুরা, সাং- বড়থলি ত্রিপুরা পাড়া, ৪নং ওয়ার্ড; ৬নং আসামি সাধুচন্দ্র ত্রিপুরা (৫৩), পিতা- প্রভাত ত্রিপুরা, সাং- প্রাংজা ত্রিপুরা, ৭নং ওয়ার্ড; ৭নং আসামি সত্যচন্দ্র ত্রিপুরা (৪৯), পিতা- লক্ষীচন্দ্র ত্রিপুরা, সাং- পুকুর পাড়া, ৬নং ওয়ার্ড ও ৮নং আসামি সুজন ত্রিপুরা (৫৭), পিতা- সুগচান ত্রিপুরা, সাং- পুকুর পাড়া, ৬নং ওয়ার্ড।

রাঙামাটি সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ জাহেদুল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোতয়ালী থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশ শহরের রিজার্ভ বাজারের একটি আবাসিক হোটেল থেকে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়। আসামীদের আদালতে প্রেরণ করা হবে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ২১ মে ২০২৪ রাত আনুমানিক ১১:৩০ টায় বড়থলি পাড়া গ্রামে আতুমং মারমার স্ত্রীর ভাই চিংহ্লা অং মারমার (৫০) মাচাং ঘরে ভাত খাওয়ার সময় মাচাং এর নিচে আসামিরা অবস্থান নেয় এবং সেখান থেকে সাহ্লাচিং মারমা ও গুনচন্দ্র ত্রিপুরা আতোমং মারমাকে বন্দুক দিয়ে গুলি করে।

আহত আতুমং মারমাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে শরীর থেকে চারটি গুলি বের করা হয়। এরপর থেকে তিনি সেখানে লাইফ-সাপোর্টে আইসিইউতে ছিলেন।

গত ৩০ মে রাত ১১:৩৮টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন চেয়ারম্যান আতুমং মারমা।

পরদিন ৩১ মে রাত ৮টার দিকে নিহত চেয়ারম্যানের বড় ভাই ক্যসিংমং মারমা (৬১) বাদী হয়ে বিলাইছড়ি থানায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও ১০/১২ জনকেও মামলায় আসামি করা হয়েছে। উক্ত বিলাইছড়ি থানার মামলা নং-০১, তাং-৩১/৫/২০২৪ ধারা-৩০২/৩৪ পেনাল কোড।

মামলায় নামভুক্ত আসামিরা হলেন- ৪নং বড়থলি ইউনিয়নের ১। সাহ্লাচিং মারমা (৪২), পিতা- সাহ্লাউ মারমা, সাং- বড়থলি মারমা পাড়া, ৫নং ওয়ার্ড, ২। গুনচন্দ্র ত্রিপুরা (৩৫), পিতা- এরাজন ত্রিপুরা, সাং- বড়থলি ত্রিপুরা পাড়া, ৪নং ওয়ার্ড, ৩। ফিলিপ ত্রিপুরা (৫৫), পিতা-বিদ্যারাম ত্রিপুরা, সাং- বড়থলি ত্রিপুরা পাড়া, ৪নং ওয়ার্ড, ৪। ওয়াইভার ত্রিপুরা (৫০), পিতা- বিদ্যারাম ত্রিপুরা, সাং- বড়থলি ত্রিপুরা পাড়া, ৪নং ওয়ার্ড, ৫। সাপ্রুচিং মারমা (৩৫), পিতা-সাহ্লাউ মারমা, সাং- বড়থলি মারমা পাড়া, ৫নং ওয়ার্ড, ৬। সাধুচন্দ্র ত্রিপুরা (৫৩), পিতা- প্রভাত ত্রিপুরা, সাং- প্রাংজা পাড়া, ৭নং ওয়ার্ড, ৭। সত্যচন্দ্র ত্রিপুরা (৪৯), পিতা- লক্ষীচন্দ্র ত্রিপুরা, সাং- পুকুর পাড়া, ৬নং ওয়ার্ড, ৮। সুজন ত্রিপুরা (৫৭), পিতা- সুগচান ত্রিপুরা, সাং- পুকুরপাড়া, ৬নং ওয়ার্ড।

গ্রেপ্তারকৃত ওয়াইভার ত্রিপুরা আওয়ামী লীগের বড়থলি ইউনিয়ন কমিটির সহ-সভাপতি এবং ৪নং ওয়ার্ডের ওয়ার্ড মেম্বার বলে জানা গেছে। অপরদিকে, সাধুচন্দ্র ত্রিপুরা আওয়ামী লীগের বড়থলি ইউনিয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক, সত্যচন্দ্র ত্রিপুরা আওয়ামী লীগের বড়থলি ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি এবং সুজন ত্রিপুরা স্থানীয় আওয়ামী লীগের সদস্য বলে জানা গেছে।

সম্পর্কিত বিষয়: