রাঙামাটি । রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৮ আষাঢ় ১৪৩১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

প্রকাশিত: ০৫:৫৫, ৮ জুন ২০২৪

আপডেট: ০৬:৩০, ৮ জুন ২০২৪

ভোটের এক দিন আগে কেন ‘সড়ক অবরোধের’ ডাক ইউপিডিএফের?

ভোটের এক দিন আগে কেন ‘সড়ক অবরোধের’ ডাক ইউপিডিএফের?
ছবি: সংগৃহীত

ঘূর্ণিঝড় রিমাল এর কারণে গত ‘২৯ মে’ স্থগিত হওয়া’ বাঘাইছড়ি উপজেলার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে  আগামী ‘৯ জুন’ রোববার। এরই মধ্যে (৭ জুন) দুর্গম এলাকার ভোট কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো শুরু হয়েছে।

কিন্তু নির্বাচনের এক দিন আগে শনিবার (০৮ জুন) শনিবার বাঘাইছড়িতে সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে পার্বত্য শান্তি চুক্তি বিরোধী ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফ (প্রসীত) দল।

বাঘাইছড়ির মাচালং নির্বাচন পরিচালনা কমিটি শুক্রবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় এই অবরোধের ডাক দেয়। এতে ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের বাঘাইহাট ইউনিট এতে পূর্ণ সমর্থন জানায় এবং শুক্রবার (৭ জুন) রাতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে রাঙামাটি ইউনিটের প্রধান সংগঠক সচল চাকমা স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে, নির্বাচনের এক দিন আগে ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের এমন কর্মসূচির বিপরীতে বাঘাইছড়ি উপজেলার ভোটারদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ-উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে।

নির্বাচনের আগে কেন এই অবরোধের ডাক?

স্থানীয় ভোটাররা বলছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের নামে উপজেলা নির্বাচনের এক দিন আগে ইউপিডিএফ (প্রসীত) দল যেহেতু বাঘাইছড়িতে সড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে, এখানে একটি বিষয় পরিস্কার এবং সেটি হচ্ছে উপজেলার সাধারণ ভোটারদের মাঝে ভয়-উদ্বেগের সৃষ্টি করে নিজেদের স্বার্থ বাস্তবায়ন করা। কেননা এর আগেও ইউপিডিএফ (তারা) করেছে, আধিপত্য বিস্তার করতে গিয়ে বাঘাইছড়িতে গত ২০১৯ সালের ১৮ই মার্চ ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা পঞ্চম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতা ঘটায় এবং এতে ৮ জন নির্বাচনী কর্মকর্তা নিহত হয় ও ৩৩ গুলিবিদ্ধ হয়ে মারাত্মক ভাবে আহত হয়। আহতদের মধ্যে এখনো অনেকে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। যদিও এ সন্ত্রাসী ঘটনায় ইউপিডিএফ (প্রসীত) দল এ ঘটনার দায় স্বীকার না করলেও তারাই কিন্তু লাভবান হয়েছেন। ভোট আসলেই ইউপিডিএফ’র অস্ত্রধারীরা যে বাঘাইছড়ির সাধারণ পাহাড়ি-বাঙালির মাঝে ভয় ভীতির সঞ্চার করে এই অবরোধের ডাক তার প্রমান যোগ করেন স্থানীয়রা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাঘাইছড়ি উপজেলা আ’লীগের এক নেতা জানান, মূলত এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী অলিভ চাকমা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমিতা চাকমার নির্বাচনী এজেন্টদের হুমকির বিষয়ে যে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে এটি আসলে ইউপিডিএফ’র  পূর্ব-পরিকল্পনার অংশ বিশেষ। ইউপিডিএফ এই উপজেলা নির্বাচনে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে জেতাতে এই সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে। তবে নির্বাচনে এর প্রভাব পড়বে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।

উল্লেখ্য, আগামী ০৯ জুন রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’ এর কারণে গত ২৯ মে বাঘাইছড়ি উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করেছিলো নির্বাচন কমিশন। এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁরা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অলিভ চাকমা ও আঞ্চলিক দল এমএন লারমার পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি পিসিজেএসএস (সংস্কার) সমর্থিত সুদর্শন চাকমা।