রাঙামাটি । রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৮ আষাঢ় ১৪৩১

খেলা ডেস্ক-

প্রকাশিত: ০৯:১৮, ৭ জুন ২০২৪

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপ - ২০২৪

পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপে প্রথম ‘অঘটন’ যুক্তরাষ্ট্রের

পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপে প্রথম ‘অঘটন’ যুক্তরাষ্ট্রের

সুপারওভারে পাকিস্তানকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে ২০২৪ আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের প্রথম ‘অঘটন’ দেখলো ক্রিকেট দুনিয়া। সুপার ওভারে ৫ রানে হেরেছে পাকিস্তান। প্রথমে ব্যাট করে ১ উইকেট হারিয়ে ১৮ রান করে যুক্তরাষ্ট্র। জবাব দিতে নেমে ১৩ রান করেছে পাকিস্তান।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) ডালাসের গ্র‌্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। জবাবে, পাকিস্তানি বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান ও টাই করে যুক্তরাষ্ট্র। ফলে, বিজয় দল নির্ধারণ করতে ম্যাচ গড়ায় সুপারওভারে।

লক্ষ্যতাড়ায় শুরুটা ভালো করে যুক্তরাষ্ট্র। উদ্বোধনী জুটিতে ৩৬ রান করে স্বাগতিকরা। ১২ রান করে নাসিম শাহর বলে আউট হন স্টিভেন টেলর। দ্বিতীয় উইকেটে ৭১ রান যোগ করে যুক্তরাষ্ট্র। ফিফটি তুলে নেন মোনাঙ্ক প্যাটেল। অ্যান্দ্রিস গাউসও বেশ ভালোই সঙ্গ দিয়েছেন তাকে। এই দুজনের জুটি ভালোভাবেই জয়ের পথে রাখছিল যুক্তরাষ্ট্রকে।

যুক্তরাষ্ট্র যখন জয় থেকে ৫৬ রান দূরে, তখন গাউস-মোনাঙ্কের জুটি ভাঙেন রউফ। মোনাঙ্কও টিকতে পারেননি বেশিক্ষণ। এরপর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে পাকিস্তানকে ম্যাচে ফেরান পেসাররা।

জয়ের জন্য শেষ ওভারে ১৫ রান দরকার ছিল যুক্তরাষ্ট্রের। প্রথম ৫ বলে ১০ রান দেন পাকিস্তানের পেসার হারিস রউফ। শেষ বলে দরকার ছিল ৫ রান। হারিস রউফের ফুলটস বলটা লং অফ দিয়ে উড়িয়ে মেরে ৪ রান আদায় করে নেন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাটার নীতিশ কুমার।

যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ৫০ রান করেছেন মোনাঙ্ক। ৩৫ রান করেছেন গাউস এবং ২৬ বলে ৩৬ রানে অপরাজিত ছিলেন অ্যারন জোনস। পাকিস্তানের হয়ে মোহাম্মদ আমির, হারিস রউফ ও নাসিম শাহ একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা একদমই ভালো হয়নি পাকিস্তানের। ম্যাচ শুরুর পাওয়ার প্লেতে পাকিস্তানকে বেশ নাজেহাল অবস্থায় ফেলে যুক্তরাষ্ট্রের বোলাররা। ৬ ওভারে মাত্র ৩০ রান তুলতেই তারা তিন উইকেট হারিয়ে বসে। যার শুরুটা হয় ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ানকে দিয়ে। নেত্রভালকারের বলে স্লিপে ঝাপিয়ে দারুণ ক্যাচ নিয়েছেন স্টিভেন টেলর। রিজওয়ান ফেরেন মাত্র ৯ রানে, বাবর তখনও রানের খাতা খোলেননি। এরপর তৃতীয় ওভারে আউট উসমান খানও। ৩ রানে তাকে ফিরিয়ে উল্লাসে মাতেন নশতুষ কেনজিগে।

সেখান থেকে অবশ্য বাবর আজম আর শাদাব খানের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় আনপ্রেডিক্টেবলরা। বাবর ৪৩ বলে ৪৪ আর শাদাব ২৫ বলে ১ চার আর ৩ ছক্কায় খেলেন ৪০ রানের ইনিংস।

তবে শাদাব আর বাবর একই ওভারে ফিরলে ৯৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফের ধুঁকছিল পাকিস্তান। তারপর ইফতিখার আহমেদের ১৪ বলে ১৮ আর শেষদিকে শাহিন শাহ আফ্রিদির ১৬ বলে ১ চার আর ২ ছক্কায় ২৩ রানে ৭ উইকেটে ১৫৯ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় পাকিস্তান।

যুক্তরাষ্ট্রের নসতুস কেনজিগে ৩০ রানে ৩টি আর সৌরভ নেত্রাভাকার ১৮ রানে নেন ২টি উইকেট।