রাঙামাটি । শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪ , ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

ব্রেকিং

গভীর রাতে কাপ্তাইয়ের কেপিএমে আগুন, উৎপাদন বন্ধবন্যপ্রাণী বাঁচাতে হলে পরিবেশ ও আবাসস্থল ঠিক রাখতে হবেরাঙামাটিতে ছেলে ধরা সন্দেহে আটক ১বগুড়ায় একই পরিবারের নিখোঁজ ৭ জনকে রাঙামাটিতে উদ্ধারক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের আর্থিক অনুদান দিলো রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদপরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই: দীপংকর তালুকদারনারী পাচার চক্রের তিন চাকমা সদস্যকে জেল হাজতে প্রেরণবাঘাইছড়িতে বন্যার পানিতে তলিয়ে নিখোঁজ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধারটানা বর্ষণে কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি, চার ইউনিটে বিদ্যুৎ উৎপাদন ১৬৪ মেগাওয়াটখাগড়াছড়িতে পাহাড়ধস: ৩ ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিকতিন দিনের সফরে রাঙামাটি আসছেন রাষ্ট্রপতিরাঙামাটিতে পাহাড় ধসের সর্তকতায় মাইকিং, প্রস্তুত ২৬৭ আশ্রয়কেন্দ্ররাঙামাটিতে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতবাঘাইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২৭ জুলাই, ভোট ইভিএমে

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ১০:৫৭, ১০ জুলাই ২০২৪

ভারতে এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, নিহত ১৮

ভারতে এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, নিহত ১৮

ভারতে উত্তর প্রদেশের উন্নাওতে দুধবহনকারী ট্যাংকারের সাথে ডাবল-ডেকার বাসের সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশুরাও রয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ১৯ জন।

পুলিশ জানিয়েছে, ডাবল-ডেকার বাসটি বিহার রাজ্যের সীতামারহি থেকে দিল্লির দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে বাসটি বুধবার ভোরে লখনৌ-আগ্রা এক্সপ্রেসওয়েতে পেছন থেকে দুধের একটি ট্যাংকারকে ধাক্কা দেয়।

দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে আহতদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং সেখানে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম।

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এই দুর্ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং আহতদের যথাযথ চিকিৎসা নিশ্চিত করতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে তার অফিস জানিয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, বুধবার ভোর ৫টার দিকে দুর্ঘটনাটি ঘটে। দূরপাল্লার বাসটি মঙ্গলবার রাতে বিহার থেকে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিল। ভোরবেলা লখনৌ-আগ্রা এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে দ্রুত গতিতে যাওয়ার সময়ই বাসটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

বেহতা মুজাওয়ার এলাকায় এসে একটি দুধের ট্যাংকারে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় বাসটি। এতে ট্যাংকার এবং বাস, দুটিই উল্টে যায় এবং হতাহতের ঘটনা ঘটে।

এদিকে দুর্ঘটনার বিষয়টি নজরে আসতেই দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন স্থানীয়রা। তারাই প্রথম উদ্ধারকাজ শুরু করেন। বাসের মধ্যে থেকে যাত্রীদের বের করে আনার চেষ্টা করেন। একই সঙ্গে খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় বাঙ্গারমাউ এবং বেহতা মুজাওয়ার থানার পুলিশ।

উদ্ধারকারী দল বাসের জানলা ভেঙে যাত্রীদের কয়েকজনকে বের করে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধারকাজ এখনও চলছে। এসডিএম নম্রতা সিং জানান, কী ভাবে দুর্ঘটনা ঘটল, তা খতিয়ে দেখা হবে। যাত্রীদের উদ্ধার করাই এখন প্রাথমিক কাজ।

তিনি বলেন, বিহার থেকে দিল্লি যাচ্ছিল বাসটি। বাসে ৫০ জন যাত্রী ছিলেন। প্রাথমিক ভাবে মনে হচ্ছে, বাস চালাতে চালাতে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন চালক। সেই কারণেই দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহত এবং আহতদের পরিচয় জানার চেষ্টাও চলছে।

জনপ্রিয়