রাঙামাটি । শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪ , ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

ব্রেকিং

গভীর রাতে কাপ্তাইয়ের কেপিএমে আগুন, উৎপাদন বন্ধবন্যপ্রাণী বাঁচাতে হলে পরিবেশ ও আবাসস্থল ঠিক রাখতে হবেরাঙামাটিতে ছেলে ধরা সন্দেহে আটক ১বগুড়ায় একই পরিবারের নিখোঁজ ৭ জনকে রাঙামাটিতে উদ্ধারক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের আর্থিক অনুদান দিলো রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদপরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই: দীপংকর তালুকদারনারী পাচার চক্রের তিন চাকমা সদস্যকে জেল হাজতে প্রেরণবাঘাইছড়িতে বন্যার পানিতে তলিয়ে নিখোঁজ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধারটানা বর্ষণে কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি, চার ইউনিটে বিদ্যুৎ উৎপাদন ১৬৪ মেগাওয়াটখাগড়াছড়িতে পাহাড়ধস: ৩ ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিকতিন দিনের সফরে রাঙামাটি আসছেন রাষ্ট্রপতিরাঙামাটিতে পাহাড় ধসের সর্তকতায় মাইকিং, প্রস্তুত ২৬৭ আশ্রয়কেন্দ্ররাঙামাটিতে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতবাঘাইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২৭ জুলাই, ভোট ইভিএমে

নিউজ ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ১১:৩৭, ৩ জুলাই ২০২৪

প্রশ্নপত্রে ব্যান্ডের নাম, যা জানালেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক

প্রশ্নপত্রে ব্যান্ডের নাম, যা জানালেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক

সারাদেশে রোববার বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। তবে পরীক্ষা শেষে দেখা যায়, প্রশ্নপত্রের বিভিন্ন সেট দেশের বিভিন্ন ব্যান্ড দলের নামে সাজানো হয়।

পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে দেখা যায়, ওয়ারফেজ, মাইলস ও চিরকুটসহ বিভিন্ন ব্যান্ডের নাম দেখা গেছে। তবে শুধু বাংলাদেশি ব্যান্ড নয়, রয়েছে কলকাতার বাংলা ব্যান্ডের নামও। এদিকে বিষয়টি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড চট্টগ্রামের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর এ এম এম মুজিবুর রহমান বলেন, প্রশ্নপত্রে কোড নাম আগে থেকেই ব্যবহার করা হত। আগে নদীর নামে করা হত। কখনো ফুলের নামে করা হত। এটার সঙ্গে শিক্ষাবোর্ডের যুক্ততা কম। বিজি প্রেস এ কাজটি করে থাকে। হয়ত চিহ্নিতকরণের জন্য করে। সেক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীরা যখন পরীক্ষার হলে প্রশ্নপত্র দেখে তখন নদীর নাম, মাছের নাম ও ফুলের নাম দেখতো।

তিনি বলেন, এখন সময় বদলেছে। বদলেছে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিও। আজকালকার তরুণদের কাছে ব্যান্ডগুলো অনেক বেশি প্রিয়। তারা কনসার্টে যোগ দেয়। নতুন নতুন যেসব ব্যান্ড আছে তাদের গান শুনে। কাজেই বিজি প্রেসের মাথায় হয়ত এটি কাজ করেছে। প্রশ্নটা হাতে নিলে শিক্ষার্থীরা ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত হতে পারে।

এ এম এম মুজিবুর রহমান বলেন বলেন, প্রশ্নপত্রে এসব কোড নাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এই নামগুলো ব্যান্ড মিউজিকে খুবই জনপ্রিয়। জনপ্রিয় ব্যান্ডের মধ্যে কিছু নাম বাছাই করে দেওয়া হচ্ছে। তরুণদের প্রাণিত করার জন্য হয়ত প্রশ্নপত্রে বিভিন্ন ব্যান্ডের নাম ব্যবহৃত হচ্ছে। এর বাইরে অন্য কোনো কারণ আছে বলে আমার মনে হয় না।

যদিও পরীক্ষার্থীদের এসব নাম নিয়ে প্রভাবিত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এটাকে নাম হিসেবে দেখলেই ভাল হয় বলে জানিয়েছেন এই পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক।

জনপ্রিয়