রাঙামাটি । মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪ , ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বিনোদন ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ১১:৪৫, ২১ অক্টোবর ২০২৩

বিটিভিতে ফিরছে শিশু-কিশোরদের প্রতিভা অন্বেষণ অনুষ্ঠান

বিটিভিতে ফিরছে শিশু-কিশোরদের প্রতিভা অন্বেষণ অনুষ্ঠান
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ টেলিভিশন দেশব্যাপী সংস্কৃতি অঙ্গনে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা শিশু-কিশোর প্রতিভা অন্বেষণ ও সাংস্কৃতিক চর্চাকে বেগবান করার লক্ষ্যে ‘নবস্পন্দন’ শিরোনামে প্রতিভা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। দেশের আট থেকে চৌদ্দ বছর বয়সী সকল শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে সংগীত, নৃত্য ও অভিনয় এই তিনটি বিষয়ে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হবে।

একজন প্রতিযোগী এক বা একাধিক বিষয়ে অংশগ্রহণ করতে পারবে। এছাড়াও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ও তৃতীয় লিঙ্গের শিশু-কিশোরেরাও অংশ নিতে পারবে।

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বিটিভি’র সদর দফতরের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে বিস্তারিত আলাপ করেন বিটিভি’র মহাপরিচালক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম।

মহাপরিচালক বলেন, আমরা মনে করি, জাতীয় সংস্কৃতি বিকাশে সহায়তা করা বাংলাদেশ টেলিভিশনের নৈতিক দায়িত্ব। ‘নবস্পন্দন’ শিশু-কিশোরদের প্রতিভা বিকাশে খুব সহায়ক হবে। প্রধানমন্ত্রীর উৎসাহে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রীর উদ্যোগ বিটিভিতে শুরু হতে যাচ্ছে এই প্রতিযোগিতা।

তিনি জানান, প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের টেলিটকের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। এ প্রতিযোগিতার জন্য একটি লগো এবং থিম সং নির্মাণ করা হয়েছে। বিটিভিতে এ সংক্রান্ত একটি টিজারের প্রচার শুরু হয়েছে। প্রতিযোগিতা অংশগ্রহণকারীদের প্রাথমিক পর্বের অডিশন বিভাগীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে। প্রাথমিক পর্বে উত্তীর্ণ প্রার্থীরাই জাতীয় পর্যায়ে ঢাকায় চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণ করবে। 

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে ইচ্ছুক প্রার্থী http://btvns.teletalk.com.bd এই ওয়েবসাইটে আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে। অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ ও জমাদান শুরুর তারিখ ৩০ অক্টোবর ২০২৩ এবং শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০২৩। প্রতিযোগিতায় প্রতিটি বিষয়ে অংশগ্রহণের জন্য জনপ্রতি ১১২ টাকা টেলিটকের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। প্রতিযোগিতা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বাংলাদেশ টেলিভিশনের ওয়েবসাইট www.btv.gov.bd-এ পাওয়া যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিটিভি’র যুগ্মসচিব উপমহাপরিচালক (প্রশাসন, অর্থ ও অনুষ্ঠান) মো. জহিরুল ইসলাম, উপমহাপরিচালক (বার্তা) ড. সৈয়দা তাসমিনা আহমেদ, পরিচালক (প্রশাসন) আফসানা বিলকিস, পরিচালক (অনুষ্ঠান ও পরিকল্পনা) জগদীশ এষ, জি.এম (ঢাকা কেন্দ্র) মাহফুজা আক্তার, বার্তা সম্পাদক জাহিদুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ারের হাত ধরে ১৯৬৬ সালে তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে শুরু হয়েছিল শিশুশিল্পীদের জন্য প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান ‘নতুন কুঁড়ি’। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭৬ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে নতুন আঙ্গিকে আয়োজনটি আবার শুরু হয়।