রাঙামাটি । রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৮ আষাঢ় ১৪৩১

নিউজ ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ০৯:৫২, ২৪ মে ২০২৪

বৈদ্যুতিক প্রিপেইড ডিজিটাল মিটার ব্যবহারের টিপস

বৈদ্যুতিক প্রিপেইড ডিজিটাল মিটার ব্যবহারের টিপস
ফাইল ছবি

বিদ্যুতের ব্যবহারে লাগাম টানতে বিল সিস্টেমের পরিবর্তে চালু হয় প্রিপেইড মিটার। অধিকাংশ বাড়িতেই এখন প্রিপেইড মিটার সিস্টেম চালু হয়েছে। বাড়িতে প্রিপেইড মিটার চালু হলেও এর ব্যবহার সম্পর্কে এখনো অনেকেই অস্পষ্ট। জানেন না কীভাবে এটি ব্যবহার করতে হয়। বৈদ্যুতিক প্রিপেইড ডিজিটাল মিটার ব্যবহারের কিছু তথ্য আলোকিত রাঙ্গামাটি অনলাইন পাঠকদের জন্য জানানো হলো।

প্রথম বার ১০০০ টাকা রিচার্জে আপনি পাবেন ৭৯২ টাকা।

কারণ-

১। মিটার পরীক্ষার সময় আপনাকে প্রথমেই ১০০ টাকা মিটারের সঙ্গে দেওয়া হয়েছিল। তাই প্রথম ১ বার ১০০ টাকা কাটবে।

২। ডিমান্ড চার্জ আগে প্রতি কিলোওয়াট লোডের জন্য ছিল ২৫ টাকা এখন ডিজিটাল মিটারের ক্ষেত্রে ১৫ টাকা। (প্রতি মাসে এক বার করে কাটবে)

৩। মিটার ভাড়া ৪০ টাকা। (প্রতি মাসে এক বার)।

৪। সরকারি ভ্যাট আগেও ছিল ৫ শতাংশ এখনো ৫ শতাংশ।

৫। সার্ভিস চার্জ ১০ টাকা। (প্রতি মাসে একবার)

বিঃ দ্রঃ এই সব কারণে ডিজিটাল মিটার প্রথম ১০০০ টাকার কার্ড রিচার্জে ১০০০ টাকার স্থানে ৭৯২ টাকা দেখাবে, কিন্তু আপনি ঐ মাসেই যদি আবার ১০০০ টাকা রিচার্জ করেন তাহলে শুধু সরকারি ভ্যাট ৫ শতাংশ টাকা কাটার পর বাকি টাকা মিটারে রিচার্জ হবে। তাই ডিজিটাল মিটারের গ্রাহকদের আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই।

স্থিতি জানতে আরো কিছু বিশেষ তথ্য-

১। আপনি কত ইউনিট ব্যবহার করেছেন তা জানার জন্য ৮০০ চাপুন।

২। আপনার মিটারে কত টাকা জমা আছে তা জানতে ৮০১ চাপুন।

৩। ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স জানতে ৮১০ চাপুন।

৪। মিটারটি চালু অথবা বন্ধ করতে ৮৬৮ চাপুন।

৫। আপনার মিটারটি কত কিলোওয়াটের তা জানতে ৮৬৯ চাপুন।