রাঙামাটি । রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ১০ আষাঢ় ১৪৩১

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্কঃ-

প্রকাশিত: ১৫:৩২, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

ফেসবুক-গুগলকে করের আওতায় আনার তাগিদ

ফেসবুক-গুগলকে করের আওতায় আনার তাগিদ

ডিজিটাল পস্ন্যাটফর্মের ফেসবুক ও গুগলসহ বিদেশি কোম্পানিগুলোকে করের আওতায় আনতে কঠোর হওয়ার তাগিদ দিয়েছে ইন্সটিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি)। একই সঙ্গে সব ধরনের কৃষিজাত ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যকে উৎসে কর কর্তনের আওতাবহির্ভূত রাখার প্রস্তাব দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের জাতীয় রাজস্ব ভবনে কয়েকটি আর্থিক নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আয়োজিত এক প্রাক বাজেট আলোচনায় এমন তাগিদ দেওয়া হয়। এদিন রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে আইসিএমএবি ছাড়াও আলোচনায় অংশ নেয় আইসিএসবি, আইসিএবি, আইএবি, বাংলাদেশ ভ্যাট প্রোফেশনাল ফোরাম, ইরনেস্ট অ্যান্ড ইয়ং অ্যাডভাইজারি সার্ভিসেস লিমিটেডের নেতারা।

অনুষ্ঠানে আইসিএমএবি প্রেসিডেন্ট মো. আবদুর রহমান খান বলেন, 'আয়কর আইন অনুযায়ী বাংলাদেশে স্থায়ী অফিস না থাকলে কোনো বিদেশি কোম্পানিকে কর ধার্যের আওতায় আনার বিধান নেই। তবে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের ফলে স্থায়ী

স্থাপনা না রেখে বিদেশি কোম্পানিগুলো ডিজিটাল পস্ন্যাটফর্মের মাধ্যমে ব্যবসা করে যাচ্ছে। ভ্যাট আইনের মতো আয়কর আইনে স্থানীয় এজেন্ট নিয়োগের বিধান করা হলে বিদেশি কোম্পানি স্থানীয় এজেন্ট রাখবে ও তা তাদের বাংলাদেশের স্থানীয় স্থাপনা বলে বিবেচিত হবে। ফলে তারা বাংলাদেশে অর্জিত আয়ের ওপর কর দিতে বাধ্য থাকবে।'

সব ধরনের কৃষিজাত ও নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যকে উৎসে কর কর্তনের আওতাবহির্ভূত রাখার প্রস্তাব করে তিনি বলেন, 'সব কৃষিপণ্যে উৎসে কর ২ শতাংশ হারে কর্তনের বিধান রয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ওপর করের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হলে- তা সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।'

সভাপতির বক্তব্যে এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, 'রাজস্ব ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়নের কাজ চলছে। তাড়াহুড়ো করে কোনো নীতি জনগণের ওপর না চাপিয়ে ধীরে ধীরে সহনীয়ভাবে পরিবর্তন আনায় বিশ্বাস করে এনবিআর।'

এ ছাড়া ব্যক্তির করমুক্ত আয়ের সীমা তিন লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে সাত লাখ করার প্রস্তাব দিয়েছে ইন্সটিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি)।