রাঙামাটি । শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪ , ২৮ আষাঢ় ১৪৩১

ব্রেকিং

গভীর রাতে কাপ্তাইয়ের কেপিএমে আগুন, উৎপাদন বন্ধবন্যপ্রাণী বাঁচাতে হলে পরিবেশ ও আবাসস্থল ঠিক রাখতে হবেরাঙামাটিতে ছেলে ধরা সন্দেহে আটক ১বগুড়ায় একই পরিবারের নিখোঁজ ৭ জনকে রাঙামাটিতে উদ্ধারক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের আর্থিক অনুদান দিলো রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদপরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই: দীপংকর তালুকদারনারী পাচার চক্রের তিন চাকমা সদস্যকে জেল হাজতে প্রেরণবাঘাইছড়িতে বন্যার পানিতে তলিয়ে নিখোঁজ শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধারটানা বর্ষণে কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি, চার ইউনিটে বিদ্যুৎ উৎপাদন ১৬৪ মেগাওয়াটখাগড়াছড়িতে পাহাড়ধস: ৩ ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিকতিন দিনের সফরে রাঙামাটি আসছেন রাষ্ট্রপতিরাঙামাটিতে পাহাড় ধসের সর্তকতায় মাইকিং, প্রস্তুত ২৬৭ আশ্রয়কেন্দ্ররাঙামাটিতে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতবাঘাইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২৭ জুলাই, ভোট ইভিএমে

রাঙামাটি (সদর) প্রতিনিধিঃ-

প্রকাশিত: ১৬:৪৯, ২২ মে ২০২৩

আপডেট: ১০:১৩, ২৩ মে ২০২৩

দুর্গম পাহাড়ে আলোয় আলোকিত হচ্ছে পাহাড়বাসীর জীবন : নিখিল কুমার চাকমা

দুর্গম পাহাড়ে আলোয় আলোকিত হচ্ছে পাহাড়বাসীর জীবন : নিখিল কুমার চাকমা
দুর্গম বরকলে উপকারভোগীদের মাঝে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণ করছেন নিখিল কুমার চাকমা। ছবিঃ আলোকিত রাঙ্গামাটি

দুর্গম পাহাড়ে আলোয় আলোকিত হচ্ছে পাহাড়বাসীর জীবন বলে মন্তব্য করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলকে আলোকিত করতে কাজ করার পাশাপাশি এখানকার মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

সোমবার (২২ মে) সকালে দুর্গম বরকল উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বরকল উপজেলার বড় হরিণা ও আইমছড়া ইউনিয়নের ৪৬২ জন উপকারভোগীদের মাঝে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সোলার হোম সিস্টেম প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (উপ সচিব) হারুন অর রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ কুমার চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তুষিত চাকমা, বরকল থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন, বরকল সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার চাকমা প্রমুখ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা আরো বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলের অধিকাংশ গ্রাম সোলার হোম সিস্টেমের মাধ্যমে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হচ্ছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে যেখানে বিদ্যুৎ লাইন বসানো যাবে না, সে সমস্ত দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সোলার প্যানেলের মাধ্যমে বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে। এতে করে দুর্গম পার্বত্য পল্লীগুলোর মানুষ ডিজিটাল সুযোগ সুবিধার অন্তর্ভুক্তির পাশাপাশি স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে অংশ নিতে পারবেন।

আলোচনা সভা শেষে বরকল উপজেলার দুর্গম বড় হরিণা ও আইমছড়া ইউনিয়নের ৪৬২ জন উপকারভোগীদের মাঝে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণ করা হয়।

সম্পর্কিত বিষয়:

জনপ্রিয়